AIDS কি? এইচআইভি ভাইরাস কি? এইডস কেন হয়? এইডস এর লক্ষণ এবং করণীয়

HIV এবং AIDS কি?

Human immunodeficiency virus (HIV) একটি ভাইরাস যা ইমিউন সিস্টেমকে মারাত্বকভাবে প্রভাবিত করে। এটি ধীরে ধীরে মানবদেহের CD4 কোষ নামক কোষকে ধ্বংস করে, যা সাধারণত রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করে শরীরকে সুস্থ থাকতে সাহায্য করে। যদি এইচআইভির চিকিৎসা না করা হয়, তবে বেশিরভাগ মানুষ ১০ বছরের মধ্যে গুরুতর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা অনেকটাই হারিয়ে ফেলে। তখন শরীর আর সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করতে এবং ক্যান্সারের বিকাশ বন্ধ করতে পারে না। এইচআইভি সংক্রমণের এই শেষ পর্যায়কে বলা হয় Acquired immunodeficiency syndrome (AIDS).

AIDS কি?

এইচআইভি সংক্রমণের লক্ষণগুলি কী কী?

যখন মানুষ প্রথম এই রোগে সংক্রমিত হয় তখন বেশিরভাগ লোকের কোন উপসর্গ থাকে না বা শুধুমাত্র হালকা ফ্লু-এর মতো অসুস্থতা থাকে যা অন্যান্য ভাইরাস সংক্রনের কারণেও হতে পারে। তাই এটি এইচআইভি কিনা তা বুঝা কষ্টকর হয়ে পড়ে। এই অসুস্থতা, যাকে বলা হয় ‘seroconversion illness’, প্রায়শই সংক্রমণের প্রায় ১০ থেকে ১৪ দিন পরে ঘটে।

Seroconversion illness এর বিভিন্ন উপসর্গ থাকতে পারে, যার মধ্যে রয়েছে:

  • জ্বর
  • ক্লান্তি
  • মাথাব্যথা
  • পেশী এবং জয়েন্টগুলোতে ব্যথা
  • গলা ব্যথা
  • ঘাড়, আন্ডারআর্ম বা কুঁচকির অংশে ফোলা
  • ফুসকুড়ি

এইচআইভি সংক্রমণের প্রথম ধাপে আক্রান্ত ব্যক্তিদের সাধারণত অন্য আর তেমন কোনো উপসর্গ থাকে না। তবে ভাইরাস শরীরে থেকে যায়।

এইডস এর প্রভাব কি হতে পারে?

দুর্বল ইমিউন সিস্টেম সাধারনত অন্যান্য রোগ বিকাশের ঝুঁকি বাড়ায়। এর মধ্যে রয়েছে:

  • যক্ষ্মা (টিবি), সাইটোমেগালোভাইরাস, ক্যান্ডিডিয়াসিস, ক্রিপ্টোকোকাল মেনিনজাইটিস, টক্সোপ্লাজমোসিস এবং ক্রিপ্টোস্পোরিডিওসিসের মতো সংক্রমণ
  • ক্যান্সার, যেমন কাপোসি সারকোমা এবং লিম্ফোমা ওয়েটিং সিন্ড্রোম (ওজন হ্রাস, প্রায়ই জ্বর এবং ডায়রিয়া ইত্যাদি)
  • স্নায়বিক সমস্যা
  • কিডনীর রোগ

AIDS কি?

কীভাবে মানুষ এইচআইভি দ্বারা সংক্রামিত হয়?

এইচআইভি ব্যক্তির রক্ত, বীর্য, যোনিপথের তরল এবং বুকের দুধে থাকে। শরীরের এই তরলগুলির সংস্পর্শে আসার মাধ্যমে এটি ছড়িয়ে পড়তে পারে:

  • কনডম ছাড়া অরক্ষিত পায়ূ বা যোনিপথে যৌন মিলন
  • ওষুধ-ইনজেকশনের একই সরঞ্জাম একাধিক ব্যাক্তির উপর প্রয়োগ করা
  • অবিশুদ্ধ সূঁচ বা সরঞ্জাম দিয়ে ট্যাটু করা, ছিদ্র করা ইত্যাদি
  • গর্ভাবস্থা, প্রসব বা বুকের দুধ খাওয়ানোর সময় মা থেকে শিশুর মধ্যে সংক্রমণ
  • ওরাল সেক্স, যদিও এটি বিরল
  • ধারালো আঘাত (স্বাস্থ্যসেবা কর্মীদের ভুলবশত সুই দিয়ে আঘাত করা হলে)
আরও পড়ুন:  নবজাতক শিশুর যত্নে করণীয় কাজগুলো। My bangla blog

মনে রাখা গুরুত্বপূর্ণ যে এইচআইভি কিছু ক্রিয়াকলাপ যেমন চুম্বন, একই কাপ ভাগ করে নেওয়া, স্বাভাবিক সামাজিক যোগাযোগ, টয়লেটের সিট বা মশার মাধ্যমে ছড়ায় না।

AIDS কি?

আপনি এইচআইভি সংক্রমণের উচ্চ ঝুঁকিতে আছেন যদি:

  • এইচআইভি ঝুঁকিতে থাকা অন্য কারো সাথে আপনি সেক্স করেন বা সূঁচ শেয়ার করেন
  • আপনি সেক্স টয় শেয়ার করেন
  • আপনি এইচআইভি সংক্রমণের হার বেশি (সাব-সাহারান আফ্রিকা, ক্যারিবিয়ান, কম্বোডিয়া, থাইল্যান্ড, বার্মা এবং পাপুয়া নিউ গিনি সহ) এমন দেশগুলির লোকদের সাথে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করেন
  • আপনি অবৈধ ওষুধ, ইনজেকশন এবং সূঁচ শেয়ার করেন
  • আপনি জীবাণুমুক্ত যন্ত্রপাতি ব্যবহার না করে ট্যাটু বা শরীরে অন্যান্য ছিদ্র করেন
  • আপনার যৌনবাহিত রোগ (sexually transmitted infection – STI) থাকে। মানুষ একই সময়ে বিভিন্ন STI-তে সংক্রমিত হতে পারে। STI থাকলে এইচআইভি তে সংক্রামিত হওয়া এবং এটি যৌন সঙ্গীদের শরীরে ছড়ানো সহজ করে তুলতে পারে।
  • আপনি এমন একটি দেশে রক্ত-আদান প্রদান করেছেন যেখানে রক্ত ​​​​আদান-প্রদান নিরাপদ নয়

আমার কখন এইচআইভি পরীক্ষা করা উচিত?

আপনি যদি মনে করেন যে আপনার এইচআইভি থাকতে পারে বা আপনি এইচআইভির ঝুঁকিতে আছেন, তাহলে আপনি ডাক্তার বা যৌন স্বাস্থ্য ক্লিনিকের সাথে এইচআইভি পরীক্ষা করার বিষয়ে কথা বলুন। উচ্চ ঝুঁকিতে থাকা কিছু লোককে নিয়মিত পরীক্ষা করা দরকার। আপনার এইচআইভি পরীক্ষা করা উচিত যদি:

  • আপনি এমন একজন সঙ্গীর সাথে অরক্ষিত যৌন মিলন (যোনি বা পায়ুপথ) করেছেন যার এইডস স্ট্যাটাস অজানা বা যার এইচআইভি আছে কিন্তু তাদের রক্তে পরিমাপযোগ্য পরিমাণে ভাইরাস নেই (যাকে বলা হয় ‘undetectable viral load’)
  • এইচআইভি সংক্রমণের উচ্চ হার রয়েছে এমন একটি দেশের একজন ব্যক্তির সাথে আপনি অরক্ষিত যৌন মিলন (যোনি বা পায়ুপথ) করেন
  • আপনার যৌন সঙ্গী সম্প্রতি এমন একটি দেশে ভ্রমণ করেছেন যেখানে এইচআইভি সংক্রমণের উচ্চ হার রয়েছে এবং সেখানে অরক্ষিত যৌনতা থাকতে পারে
  • আপনি আফ্রিকা, পূর্ব ইউরোপ, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া বা পাপুয়া নিউ গিনির একজন যৌনকর্মীর সাথে অরক্ষিত যৌন মিলন করেন
  • আপনি কখনও ইনজেকশন সরঞ্জাম শেয়ার করে থাকেন
আরও পড়ুন:  সর্দি থেকে মুক্তির ঘরোয়া উপায়। Tips for avoiding cold

প্রাথমিক রোগ নির্ণয় খুবই গুরুত্বপূর্ণ এবং তা দীর্ঘমেয়াতে সুফল বয়ে আনতে পারে। একই সময়ে অন্যান্য STI সম্পর্কে আপনার ডাক্তার বা যৌন স্বাস্থ্য ক্লিনিকের সাথে কথা বলা আপনার জন্য ভালো হবে।

কিভাবে এইচআইভি ভাইরাস নির্ণয় করা হয়?

রক্ত পরীক্ষা

আপনার ডাক্তার বা যৌন স্বাস্থ্য ক্লিনিক এইচআইভির জন্য রক্ত ​​​​পরীক্ষার পরামর্শ দিতে পারে। রক্ত একটি পরীক্ষাগারে পাঠানো হয়, এবং ফলাফল পেতে কয়েক দিন লাগতে পারে।

র‍্যাপিড এইচআইভি টেস্ট

আপনার ডাক্তার একটি দ্রুত পরীক্ষা পদ্ধতি ব্যবহার করতে পারেন, যা হতে পারে আঙুল থেকে রক্ত নিয়ে বা লালার মাধ্যমে। এটি আপনাকে ১০ থেকে ২০ মিনিটের মধ্যে একটি ফলাফল দিতে পারে, তবে এটি সর্বদা ল্যাবে পরীক্ষার দ্বারা নিশ্চিত করা প্রয়োজন।

এইডস কেন হয়?

পরীক্ষার মাধ্যমে রেজাল্ট যদি পজিটিভ আসে, তাহলে তা নিশ্চিত করার জন্য আপনাকে আরও পরীক্ষার জন্য আপনার ডাক্তার দেখাতে হবে। আপনার যে ধরনের পরীক্ষাই হোক না কেন, রক্তে এইচআইভি সংক্রমণের জন্য পজিটিভ রেজাল্ট আসতে কখনো কখনো ২৪ দিন পর্যন্ত সময় লাগতে পারে। এর মানে হল যে আপনি শুরুতে নেগেটিভ রেজাল্ট পেতে পারেন যদিও তখন আপনার শরীরে এইচআইভি সংক্রমণ থাকে। এটি ‘False negative’ হিসাবে পরিচিত। সুতরাং, আপনার এইচআইভি আছে কিনা তা নিশ্চিত হওয়ার জন্য সময়ের সাথে সাথে আপনার একাধিক পরীক্ষার প্রয়োজন হতে পারে।

কিভাবে এইডস এর চিকিৎসা করা হয়?

এইডস বা এইচআইভি সংক্রমণের কোনো ভ্যাকসিন বা প্রতিকার নেই। যাইহোক, কার্যকর চিকিৎসা রয়েছে যা এইচআইভি সংক্রমণ এবং এইডসের অগ্রগতি রোধ করতে পারে এবং কাছাকাছি-স্বাভাবিক আয়ু নিশ্চিত করতে সহায়তা করে।

এই চিকিৎসাগুলো antiretroviral therapy (ART) নামে পরিচিত। এই পদ্ধতি ভাইরাস নিজেকে পুনরুত্পাদন করা থেকে বিরত করে, যা ভাইরাসের সংখ্যা বৃদ্ধিতে বাধা দেয়।

এইচআইভি-পজিটিভ ব্যক্তিরা যারা প্রেসক্রিপশন অনুযায়ী প্রতিদিন ART গ্রহণ করেন তাদের দেহে তেমন ভাবে ভাইরাসের সংখ্যা বাড়তে পারে না এবং এইচআইভি নেগেটিভ সঙ্গীর কাছে ভাইরাস প্রেরণ করতে পারে না।

আরও পড়ুন:  ওজন কমানোর সহজ উপায়। How will you keep fit?- My bangla blog

এইচআইভি সংক্রমিত হওয়া থেকে আমি কীভাবে নিজেকে রক্ষা করব?

  • এইচআইভি সংক্রমণ প্রতিরোধের সর্বোত্তম উপায় হল: পায়ুপথ এবং যোনিপথে যৌনতার জন্য কনডম এবং লিকুইড লুব্রিকেন্ট ব্যবহার করুন
  • কখনোই সূঁচ, সিরিঞ্জ বা অন্য ইনজেকশনের সরঞ্জাম শেয়ার করবেন না
  • নিশ্চিত করুন যে সমস্ত ট্যাটু করা, ছিদ্র করা এবং অন্যান্য পদ্ধতির ক্ষেত্রে জীবাণুমুক্ত সরঞ্জাম ব্যবহার করা হয়েছে

এইডস কেন হয়?

আমি কীভাবে অন্য কাউকে এইচআইভি সংক্রমণ হওয়া এড়াতে পারি?

আপনি যদি এইচআইভি সংক্রামিত হন, অন্যদের মধ্যে এইচআইভি সংক্রমণ ছড়ানো প্রতিরোধ করার সর্বোত্তম উপায় হল:

  • আপনি আপনার প্রেসক্রিপশন অনুযায়ী ওষুধ গ্রহণ করুন
  • আপনার নিজের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে থাকলে এইচআইভি সংক্রমণের ঝুঁকি খুব কম থাকে (এটিকে বলা হয় ‘undetectable viral load’)
  • পায়ুপথ এবং যোনিপথে যৌনতার জন্য কনডম এবং লিকুইড লুব্রিকেন্ট ব্যবহার করুন
  • সূঁচ, সিরিঞ্জ এবং অন্যান্য ইনজেকশন সরঞ্জাম শেয়ার করবেন না
  • আপনার যদি এইচআইভি সংক্রমণ থাকে, তবে আপনার কাছ থেকে এক্সপোজারের ঝুঁকিতে থাকা কাউকে অবহিত করবেন।
  • আপনি যদি গর্ভবতী হন, তাহলে গর্ভাবস্থায়, প্রসবকালীন বা বুকের দুধ খাওয়ানোর সময় শিশুর কাছে সংক্রমণ রোধ করতে ART শুরু করার বিষয়ে আপনার ডাক্তারের সাথে কথা বলুন।

এইচআইভির সঙ্গে বসবাস

আপনার যদি এইচআইভি বা এইডস থাকে, তাহলে আপনার ক্রমাগত চিকিৎসায় লেগে থাকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সতর্কতা অবলম্বন করুন যাতে আপনি অন্য কাউকে সংক্রামিত না করেন।

আপনার পুষ্টিকর খাদ্য খাওয়া উচিত এবং কাঁচা মাংস এবং ডিম এড়িয়ে চলা উচিত। এর কারণ হল এইচআইভি আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে খাদ্যজনিত সমস্যা প্রকট বা দীর্ঘস্থায়ী হওয়ার সম্ভাবনা বেশি, যেহেতু এইচআইভি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে ক্ষতিগ্রস্ত করে। আপনার হাত ধোয়া এবং ভাল স্বাস্থ্যবিধি বজায় রাখার বিষয়ে খুবই সচেতন থাকতে হবে। নিশ্চিত করুন যে আপনি নিয়মিত সবগুলো টীকা নিয়েছেন। নিয়ম নীতি মেনে চললে আশা করা যায় এইডস এর সাথে লড়াই করে টিকে থাকতে পারবেন।

Leave a Comment