চিকিৎসায় নোবেল বিজয়ী হলেন সুইডিশ জিনবিজ্ঞানী সুভান্তে পাবো।

চলতি বছরে চিকিৎসা বিজ্ঞানে নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন সুইডেনের বিজ্ঞানী সুভান্তে পাবো। মুলত মানব বিবর্তনের জিনোম সম্পর্কিত আবিষ্কারের জন্য এই পুরষ্কারে ভূষিত হন তিনি।

চিকিৎসায় নোবেল বিজয়ী হলেন সুইডিশ জিনবিজ্ঞানী সুভান্তে পাবো।
ছবি: সংগ্রহীত

৩ অক্টোবর সোমবার বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে সুইডেনের ক্যারোলিনস্কা ইনস্টিটিউট চিকিৎসা বিজ্ঞানে এ বছরের বিজয়ী হিসেবে তার নাম ঘোষণা করে। সংস্থাটি জানায়, বিলুপ্ত হোমিনিন এবং মানব বিবর্তনের জিনোম সম্পর্কিত আবিষ্কারের জন্য তিনি এবার চিকিৎসায় নোবেল বিজয়ী হয়েছেন। পুরষ্কারটির মুল্য সুইডিশ মুদ্রায় ১০ মিলিয়ন ক্রাউন (৯০০,৩৫৭ ইউএস ডলার)।
থমাস পার্লম্যান, নোবেল কমিটির ফিজিওলজি বা মেডিসিন এর সেক্রেটারি, যিনি এই খবর পাবোকে ফোন করে জানিয়েছিলেন, তিনি বলেন, “তিনি অভিভূত হয়েছিলেন, তিনি বাকরুদ্ধ ছিলেন। খুব খুশি” 

নোবেল বিজয়ী জৈব রসায়নবিদ সুনে বার্গস্ট্রোমের পুত্র সুভান্তে পাবো। ডিএনএ সিকোয়েন্সিং এর মাধ্যমে প্রায় বহু বছর পুর্বের বিলুপ্ত মানুষ এবং আধুনিক মানুষের মধ্যে যোগসূত্র প্রকাশ করার জন্য তিনি এই স্বীকৃতি পান।

তিনি সাইবেরিয়ায় আবিষ্কৃত একটি আঙুলের হাড়ের ৪০,০০০ বছরের পুরনো খণ্ড থেকে ডেনিসোভান নামে একটি পূর্বের অজানা মানব প্রজাতির অস্তিত্বের কথাও তুলে ধরেন। গত বছর চিকিৎসা বিজ্ঞানে এই পুরষ্কার পেয়েছিলেন আমেরিকান ডেভিড জুলিয়াস এবং আরডেম প্যাটাপাউটিয়ান। উনাদের দেওয়া হয়েছিলো মানুষের ত্বকে এমন রিসেপ্টর আবিষ্কারের জন্য যা তাপমাত্রা এবং স্পর্শের প্রতি সংবেদনশীল এবং যা শারীরিক প্রভাবকে স্নায়ুবিক আবেগে রূপান্তর করে। ১৯০১ থেকে ২০২১ সালের মধ্যে এখন পর্যন্ত ৬০৯ বার এ পুরস্কার দেয়া হয়েছে।

Leave a Comment