সাত পাহাড়ের শহর রোম। 7 hills of Rome – My bangla blog

রোমান মিথলোজি অনুসারে প্রাচীন নগরী রোম সাতটি পাহাড়ের উপরে এবং এর মধ্যে নির্মিত হয়েছিল, যার সবগুলিই আধুনিক ইতালির রাজধানীর মূল অংশ। একারনেই মূলত রোম সাত পাহাড়ের শহর হিসেবে পরিচিতি লাভ করে।

সাত পাহাড়ের শহর রোম।

My bangla blog এর সকল পোস্ট গুগল নিউজে পেতে ভিজিট করুন এখানে Google news

এখন একটি প্রশ্ন খুব সহজেই মনে আসতে পারে যে “রোমের সাতটি পাহাড় কী কী?” এই সাতটি পাহাড় শহরের সমৃদ্ধ ইতিহাসে ওতোপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছে। চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক রোমের সাতটি পাহাড় এবং তাদের ইতিহাস সম্পর্কে।

১. প্যালাটাইন হিল

সাত পাহাড়ের সবচেয়ে বিখ্যাত হল প্যালাটাইন হিল, যেখান থেকে রোম শহরটি প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল বলে মনে করা হয়। রোমান পৌরাণিক কাহিনী অনুযায়ী, রোমুলাস এবং রেমাসকে নামক শিশুকে টাইবার নদীতে ফেলে দেওয়া হয়েছিল। সেখানে একটি নেকড়ে তাদের দুধ পান করিয়ে বাঁচিয়ে রেখেছিল। তাদের উদ্ধার করার পর একজন রাখাল এবং তার স্ত্রীর কাছে তারা বড় হয়।

সাত পাহাড়ের শহর রোম।
প্যালাটাইন হিল

বড় হওয়ার পর তারা একটি নতুন শহর স্থাপন করার সিদ্ধান্ত নেয়। কিন্তু কোথায় নতুন শহর স্থাপন করবে তা নিয়ে তাদের মধ্যে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। অবশেষে, রোমুলাস রেমাসকে হত্যা করে এবং ২১শে এপ্রিল, ৭৫৩ খ্রিস্টপূর্বাব্দে প্যালাটাইন পাহাড়ে শহরের ভিত্তি স্থাপন করে।  

আরও পড়ুন:  সেন্টিনেলিজ জাতি: নিষিদ্ধ সেন্টিনেল দ্বীপের আদিবাসী।

রিপাবলিকান আমলে এই পাহাড়ে অনেক ধনী রোমানদের বাড়ি ছিল। প্যালাটাইন হিল ৭টি পাহাড়ের মধ্যে একমাত্র যেটি দেখার জন্য আপনার টিকেট লাগবে। আপনি যখন আধুনিক সপ্তাশ্চর্যের অন্তর্ভুক্ত কলোসিয়ামের টিকিট কিনবেন, এর মাধ্যমেই তখন প্যালাটাইন হিলে প্রবেশ করতে পারবেন।

২. ক্যাপিটোলিন হিল

রোমের আরেকটি উল্লেখযোগ্য পাহাড় হল ক্যাপিটোলিন হিল। প্রাচীনকালে রোমানদের কাছে এটি একটি দুর্গ হিসাবে ব্যবহৃত হত। এখানে জুপিটারের সেরা এবং সর্বশ্রেষ্ঠ মন্দির, জুনোর মন্দির এবং ট্যাবুলারিয়াম রয়েছে। সময়ের সাথে সাথে এটি সেই গুরুত্ব ধরে রেখেছে। ষোড়শ শতকে পাহাড়টি মাইকেল এঞ্জেলোর দ্বারা ল্যান্ডস্কেপ আঁকা হয়েছিল। 

সাত পাহাড়ের শহর রোম।
ক্যাপিটোলিন হিল

ক্যাপিটোলাইন মিউজিয়ামকে বলা হয় বিশ্বের প্রথম পাবলিক মিউজিয়াম যা দুটি ভবনে অবস্থিত এবং এতে গুরুত্বপূর্ণ প্রাচীন ব্রোঞ্জ, মার্বেল মূর্তি এবং রেনেসাঁর শিল্পকর্ম রয়েছে।

৩. এভেন্টাইন হিল

সার্কাস ম্যাক্সিমাসের ঠিক অদূরে অবস্থিত অ্যাভেন্টাইন হিল। রোমের অন্যতম আকর্ষণীয় হিল এটি। বর্তমানে এটি একটি ধনী আবাসিক এলাকা হিসেবে পরিচিত।

সাত পাহাড়ের শহর রোম।
এভেন্টাইন হিল

পৌরাণিক কাহিনী অনুসারে, যখন রোমুলাস এবং রেমাস ক্ষমতার জন্য যুদ্ধ করছিলেন, তখন রেমাস তার সাম্রাজ্য স্থাপন করতে অ্যাভেন্টাইন হিলকে বেছে নিয়েছিলেন। পরবর্তীতে রোমুলাস রেমাসকে মেরে ফেলার পর এভেন্টাইন হিল কয়েক শতাব্দী ধরে বিভিন্ন শক্তিশালী শাসক দ্বারা পরিচালিত হয়। এখানে রোমের দর্শনীয় গোলাপ বাগান রয়েছে যা বসন্তকালে দেখার মতো।

আরও পড়ুন:  সাহারা মরুভূমি: পৃথিবীর উষ্ণতম অঞ্চল

৪. কেলিয়ান হিল

সাত পাহাড়ের শহর রোম।
কেলিয়ান হিল

কেলিয়ান হিলকে ‘চেলিয়ান’ হিল নামেও ডাকা হয়। এটি কলোসিয়ামের কাছাকাছি অবস্থিত। ক্যালিয়ান পাহাড় প্রজাতান্ত্রিক যুগে রোমের ধনী পরিবারদের আবাসিক জায়গা ছিল। এখানে মাটির নীচে বিস্তৃত সজ্জিত ভিলার প্রমাণ পাওয়া গেছে। তিন-স্তর বিশিষ্ট ব্যাসিলিকা ডি সান ক্লেমেন্টে, গোলাকার সান্টো স্টেফানো রোটোন্ডো এবং বেসিলিকা দে সান্তি কোয়াত্রো করোনাটি সহ এই এলাকায় অনেকগুলি উল্লেখযোগ্য গীর্জা রয়েছে। ভিলা সেলিমন্টানা নামক উদ্যান শহরের অন্যতম সুন্দর জায়গা বলে বিবেচিত হয়।

৫. এসকুইলিন হিল

এসকুইলিন হিল | Source: Flickr/antonellaprof

টার্মিনি স্টেশন এবং কলোসিয়ামের মাঝখানে এসকুইলাইন হিল অবস্থিত, যেখানে সম্রাট নিরো তার অসাধারণ ডোমাস অরিয়া, গোল্ডেন হাউস (রোমান সভ্যতার মধ্যে নির্মিত সবচেয়ে বড় ভিলা) তৈরি করেছিলেন। প্রাসাদটির নির্মান কাজ শেষ হওয়ার পরে, সম্রাট স্পষ্টতই চিৎকার করে বলেছিলেন: “অবশেষে, আমার বসবাসের জন্য যোগ্য একটি প্রাসাদ নির্মিত হয়েছে।” উক্তিটি বাড়াবাড়ি মনে হতে পারে, তবে তা স্পষ্টতই নিরোর আড়ম্বরপূর্ণ মনোভাবের প্রমাণ দেয়।

এই পাহাড়ের অন্যান্য আকর্ষণগুলোর মধ্যে রয়েছে ‘আর্ক অফ গ্যালিয়ানাস’, যা রিপাবলিকান শহরের অন্যতম প্রধান গেট হিসেবে বিবেচিত।

৬. কুইরিনাল হিল

কুইরিনাল হিল

কুইরিনাল হিল হল ইতালীয় প্রজাতন্ত্রের রাষ্ট্রপতির বাসস্থান যিনি পালাজো দেল কুইরিনালের মধ্যে থাকেন । এটি বিশ্বের বৃহত্তম প্রাসাদগুলির মধ্যে একটি এবং পূর্বে এটি মূলত পোপের বাসভবন ছিল। প্রকৃতপক্ষে এখানে ৩০ জন পোপ, ইতালির চার রাজা এবং ইতালীয় প্রজাতন্ত্রের ১২ জন রাষ্ট্রপতি সহ বহু শতাব্দী ধরে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ব্যাক্তিবর্গের বাসভবন ছিল। এর আশেপাশে অনেকগুলি গুরুত্বপূর্ণ স্মৃতিস্তম্ভ এবং গীর্জা রয়েছে, যার মধ্যে রয়েছে বার্নিনি দ্বারা ডিজাইন করা সান্ত’আন্দ্রিয়া আল কুইরিনালে এবং বোরোমিনি দ্বারা ডিজাইন করা সান কার্লো অ্যালে কোয়াট্রো ফন্টেন।

আরও পড়ুন:  ক্যাপাডোসিয়া: তুরস্কে মাটির নিচে শহর রয়েছে যেখানে।

খ্রিস্টপূর্ব ৬ষ্ঠ শতাব্দীতে সার্ভিয়াস টুলিয়াসের রাজত্বকালে ভিমিনাল পাহাড়ের সাথে এই পাহাড়টি সর্বপ্রথম রোমের একটি অংশ হয়ে ওঠে। পূর্বে এটি রোমের সর্বোচ্চ চূড়া হিসেবে বিবেচিত হতো।

৭. ভিমিনাল হিল

সাত পাহাড়ের শহর রোম।
ভিমিনাল হিল| Source: Flickr/antmoose

এসকুইলাইন এবং কুইরিনাল পাহাড়ের মাঝে অবস্থিত ভিমিনাল হিলটি রোমের গ্রেট হিলসের মধ্যে সবচেয়ে ছোট। এখানে রোমের টার্মিনি ট্রেন স্টেশন, টেট্রো ডেল’অপেরার অবস্থান সহ রোমের চারটি জাতীয় জাদুঘরের মধ্যে দুটি এখানে অবস্থিত। পালাজো ম্যাসিমো, হাউস অফ লিভিয়ার সুন্দর ফ্রেস্কো এবং রেস্টে বক্সারের ব্রোঞ্জ মূর্তি সহ সেখানে ছিল ডায়োক্লেটিয়ানের বিশেষ স্নানঘরের ধ্বংসাবশেষ যা মূলত প্রাচীন রোমের বৃহত্তম স্নানঘর ছিল।

Leave a Comment